Hathazari Sangbad
হাটহাজারীশনিবার , ৩০ ডিসেম্বর ২০২৩

মিরপুরে মুনিরীয়া যুব তবলীগের এশায়াত মাহফিল অনুষ্ঠিত

হাটহাজারী সংবাদ ডেস্ক:
ডিসেম্বর ৩০, ২০২৩ ৭:৩৩ অপরাহ্ণ
Link Copied!

পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (দ.) উদযাপন ও হযরত গাউছুল আজম (রা.) স্মরণে মুনিরীয়া যুব তবলীগ কমিটি বাংলাদেশের ১৮৮নং মিরপুর শাখার উদ্যোগে এশায়াত মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শুক্রবার (২৯ ডিসেম্বর) বাদে আসর মিরপুর পশ্চিম কাজীপাড়া লাল চাঁন জামে মসজিদে এ এশায়াত মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।

বিশিষ্ট সমাজ সেবক ও লাল চাঁন জামে মসজিদ কমিটির সভাপতি মোহাম্মদ নুরুজ্জামান মিয়া এর   সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মাহফিলে বক্তব্য রাখেন মাওলানা মুফতি মুহাম্মাদ রকীব উদ্দীন,লাল চাঁন জামে মসজিদের খতিব মাওলানা মুফতি মুহাম্মাদ আলী আকবর,রুপবান বিবি বাইতুল করিম জামে মসজিদের খতিব মাওলানা আব্দুল হাই।

অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত  ছিলেন মোহাম্মদ ফারুক হোসন,কাজী মোঃ শহিদুল আলম,মোহাম্মদ জিয়াউদ্দিন ,প্রমুখ।

মাহফিলে বক্তারা বলেন,মানুষ দুনিয়ার মোহে প্রলুব্ধ হয়ে আখিরাতের প্রতি উদাসীন হয়ে আছে। ধর্মীয় মূল্যবোধ ভুলে গিয়ে প্রকাশ্যে বিভিন্ন পাপাচারে লিপ্ত। মানুষকে হেদায়তের পথে ফিরিয়ে আনতে প্রয়োজন সঠিক দ্বীন-ইসলামের অনুশাসন, রাসুলুল্লাহ (দ.) এঁর সুন্নতের অনুসরণ, নবীজির আদর্শের বাস্তবায়ন। হযরত গাউছুল আজম (রাদি.) এঁর প্রতিষ্ঠিত এই তরিক্বতের অনুশীলনের মাধ্যমে মানুষ তাকওয়া, তাওয়াক্কুল, পরহেজগারিতা অর্জন করে, ইবাদাত-রিয়াজতে একাগ্রতা সৃষ্টি হয়, অন্তরে রাসুলুল্লাহ (দ.) এঁর মুহাব্বত নিয়ে দৈনিক ১১১১ বার দরুদে মোস্তফা পাঠ করে। মানুষকে হেদায়তের পথে পরিচালিত করার জন্যে তিনি আজীবন কঠোর সাধনা করেছেন। সাংগঠনিক ভাবে তরিক্বতের কার্যক্রম পরিচালনা করে সৎ কাজের আদেশ ও অসৎ কাজ থেকে বারণ করার জন্যে প্রতিষ্ঠা করেছেন মুনিরীয়া যুব তবলীগ কমিটি বাংলাদেশ। বর্তমানে তাঁরই একমাত্র প্রতিনিধি মাননীয় মোর্শেদে আজম এই তরিক্বতের সকল কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে আঞ্জাম দিয়ে যাচ্ছেন, নবীজির বাতেনী নূর প্রদানের মাধ্যমে মানুষের মাঝে রুহানিয়্যত বিকশিত করেছেন। রাসুলুল্লাহ (দ.) এঁর সুন্নতকে পুনরুজ্জীবিত করে আদর্শ সমাজ গঠনে অগ্রণী ভূমিকা পালন করে যাচ্ছেন। সমাজ থেকে পাপাচার নির্মূল করে মানুষকে আল্লাহ ও রাসুলের পথে পরিচালিত করছেন। তাই বর্তমান সময়ে এই তরিক্বতের অনুশীলন যেন যুগের চাহিদা।

পরিশেষে দেশ-জাতির উন্নতি-অগ্রগতি ও সমৃদ্ধি কামনায় মিলাদ-কিয়াম শেষে মোনাজাত করা হয়।