Hathazari Sangbad
হাটহাজারীবুধবার , ৬ ডিসেম্বর ২০২৩

হাটহাজারীতে জাপার আনিসুল, ফটিকছড়িতে তরিকতের ভাণ্ডারী এবারও নৌকা পাচ্ছেন!

অনলাইন ডেস্ক:
ডিসেম্বর ৬, ২০২৩ ৬:০০ অপরাহ্ণ
Link Copied!

চট্টগ্রাম ২ (ফটিকছড়ি) ও চট্টগ্রাম ৩ (হাটহাজারী) আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থীর হাতে নৌকার বৈঠা থাকছে নাকি ১৪ দলের শরীক কোন দল নৌকায় উঠছে- তা এখন চূড়ান্ত পর্যায়ে।

সোমবার (০৪ ডিসেম্বর) রাতে গণভবনে ১৪ দলীয় জোটের বৈঠক হয়েছে। চার ঘণ্টাব্যাপী বৈঠকে ঘোষণা না এলেও আজ-কালের মধ্যে আসন ভাগাভাগির বিষয়ে সিদ্ধান্ত জানানো হবে বলে সোমবার জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

ফটিকছড়ি আসনে আওয়ামী লীগ থেকে এবার মনোনয়ন পেয়েছেন বর্তমান নারী সংসদ সদস্য খাদিজাতুল আনোয়ার সনি। এই আসনের ‘ভাগিদার’ ১৪ দলের শরীক দল তরীকত ফেডারেশন। দলটির চেয়ারম্যান সৈয়দ নজিবুল বশর মাইজভাণ্ডারী আসনটি নিজের ভাগেই রাখেন। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনেও নৌকায় ওঠে ভোটের মাঠ পেরিয়েছেন তিনি। সে বার তাকে রুখতে বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছিলেন বর্তমান জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি পেয়ারুল ইসলাম। নিজেদের মধ্যে বিরোধ থাকলেও তাকে ঠেকাতে একাট্টা ছিলেন আওয়ামী লীগের নেতারা।

তবে কি এবারও তাকে ঠেকানো যাচ্ছে না? সোমবার গণভবনে ১৪ দলের বৈঠকে হাজির হয়ে বরাবরের মতো আসনটি তরীকতের কাছে দেওয়ার দাবি জানিয়েছেন চেয়ারম্যান সৈয়দ নজিবুল বশর মাইজভাণ্ডারী। বৈঠকে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত না এলেও জোটবদ্ধ শরিক দলের প্রধান হিসেবে আসনটির তার কপালেই জুটছে বলে জানা গেছে।

অন্যদিকে জোটের বণ্টনে চট্টগ্রাম-৫ হাটহাজারী আসন বারবার জাতীয় পার্টির ভাগে গেছে। জাতীয় পার্টির কো-চেয়ারম্যান আনিসুল ইসলাম মাহমুদ আসনটি থেকে নৌকা নিয়ে পরপর তিনবার এমপি হয়েছেন। প্রতিবারই আওয়ামী লীগ থেকে চট্টগ্রাম উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এম এ সালামকে মনোনয়ন দেওয়া হয়। এবারও তাকে আসনটি ছেড়ে দিতে হতে পারে আনিসুল ইসলামকে। জাতীয় পার্টি সব আসনে একক প্রার্থী দিলেও হাটহাজারীসহ অন্তত দুটি আসন জোটের ভাগে চায়। জাতীয় পার্টির সঙ্গে আসন বণ্টনে শেষ পর্যন্ত আসনটি নৌকার থাকবে কি না তা নিয়ে সংশয়ে সবাই।

যদিও মাইজভান্ডারির মতো জাতীয় পার্টির আনিসুল ইসলাম মাহমুদকে এবার আটকে দিতে চান ওই আসনের নেতারা। ৪৮ বছর ধরে আসনটি হাতছাড়া উল্লেখ করে বারবার দলীয় প্রার্থীর বিষয়ে অনড় রয়েছেন।

ফটিকছড়িতে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী খাদিজাতুল আনোয়ার সনি সিভয়েসকে বলেছেন, জোটগত প্রার্থীর বিষয়টি প্রধানমন্ত্রীর ওপর নির্ভর করছে। কোনো সিদ্ধান্ত হলে আমরাও আপনাদের মতো জানতে পারব। বাকি সিদ্ধান্ত পরবর্তী সময়ের ওপর ছেড়ে দিয়েছেন তিনি।

হাটহাজারী আসনে মনোনয়ন পাওয়া উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুস সালাম বলেছেন, ‘নেত্রী আমাকে মনোনয়ন দিয়েছেন আমি মনোনয়ন নিয়ে এসেছি। জোটের কাছে ছাড়া হচ্ছে কি হচ্ছে না তা নেত্রীই জানেন।’ যদি আসনটি অন্যান্য বারের মতো ছেড়ে দেওয়া হয় সেক্ষেত্রে স্বতন্ত্রদের কাতারে থাকছেন কিনা এমন প্রশ্নের জবাব এড়িয়ে গেছেন তিনি।

সূত্র : সিভয়েস২৪