Hathazari Sangbad
হাটহাজারীশনিবার , ১৫ জুলাই ২০২৩

মিডল অর্ডারের হার্ট, বাংলাদেশের হৃদয়

খ ম ইমতিয়াজ হোসেন, অতিথি প্রতিবেদক:
জুলাই ১৫, ২০২৩ ৬:৫৭ অপরাহ্ণ
Link Copied!

ইএসপিএন ক্রিকইনফোর গতকালের (১৪ জুলাই) ম্যাচ চলাকালীন কমেন্ট্রিতে জামিল উদ্দিন নামে একজন লিখেছিলেন, “খেলা দেখছি আটলান্টিক মহাসাগর থেকে, ক্রিকইনফোকে জানাতে চাই হৃদয় এর অর্থ হচ্ছে হার্ট”।

এরপর ক্রিকইনফো ও ম্যাচ শেষের রিপোর্ট এ লিখেছে “A hand on Hridoy (heart) thriller”

শুধু কি গতকালের ম্যাচে? এ বছরের মার্চে অভিষেক হওয়া ২২ বছরের ছেলে যে ধীরে ধীরে তার ক্যালকুলেটিভ ইনিংসের থ্রিলিং এ দেশের সবার হৃদয় জয় করে নিচ্ছে।

যে ছেলেটার ক্যারিয়ার একবার নয় কয়েকবার  হারিয়ে যেতে বসেছিল, খালেদ মাহমুদ সুজনের  উদ্যোগে ও নিজের অক্লান্ত পরিশ্রমে বারবার ফিরে এসেছে আরো খাঁটি হয়ে।

মাত্র ১৬ বছর বয়সে ১৭/১৮ সিজনে সাইনপুকুরের হয়ে লিস্ট এ ক্রিকেটে অভিষেক তৌহিদ হৃদয়ের। সে সীজনে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকের পুরষ্কার হিসেবে ১৭ বছর বয়সেই আফিফ সাইফ হাসানদের সাথে অনুর্ধ ১৯ বিশ্বকাপের স্কোয়াডে জায়গা পেয়ে যান।

সেবার আফিফ হোসেন ছাড়া বাকিরা ভালোভাবে পারফর্ম করতে না পারলেও পরের বিশ্বকাপে (২০২০ আন্ডার নাইন্টিন বিশ্বকাপ) সহ অধিনায়ক হিসেবে দক্ষিণ আফ্রিকা যান হৃদয়। আর বাংলাদেশের জন্য নিয়ে আসেন প্রথম বিশ্বকাপ।

বিশ্বকাপজয়ী এ ক্রিকেটার ২০২২ এ বিপিএলে করোনা আক্রান্ত হয়ে হারিয়ে ফেলেন নিজের ব্যাটিং রিফ্লেক্স। এক পর্যায়ে নিজ থেকেই কোচ সুজনকে বলে, আমার বদলে অন্য কাউকে খেলান। কোচ সেসব চিন্তা না করে, নিজের ব্যাটিং এ মনোযোগ দেয়ার পরামর্শ দেন। একই কথা অধিনায়ক সাকিবকে বললে, সাকিব বলেন “তোকে টিমে নিচ্ছি ফিল্ডিং এর জন্য। তুই রেস্ট নে ভালোভাবে।”

হৃদয় যে শুধু ব্যাটসম্যান নয়, দেশের অন্যতম সেরা ফিল্ডার এবং টি টুয়েন্টিতে এক্সট্রা অর্ডিনারি ফিল্ডিং দিয়ে ৪-৫ রান সেইভও অনেক গুরুত্বপূর্ণ সেটা সাকিব ভালোভাবেই জানেন।

১৪১ স্ট্রাইক রেটে ১৭ বলে ২৪ রানের ইনিংস দিয়ে তৌহিদ হৃদয়ের টি টুয়েন্টি অভিষেক হয় এ বছরের মার্চে চট্টগ্রামে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে। টি টুয়েন্টিতে মোট ইনিংস ছয়, ২৭ গড়ে ১৩৯ স্ট্রাইকরেটে মোট রান করেছেন ১৩৭।

মুশফিককে আইডল মানা বগুড়ার এ ক্রিকেটারের ওয়ানডে অভিষেক হয় স্বপ্নের মত। ওয়ানডে খেলছেনও মুশফিকের ৫ নম্বর পজিশনে। অভিষেক ওয়ানডেতে ৮৫ বলের ৯২ রানের ইনিংসটা হয়ে আছে এক আক্ষেপের গল্পে। তারপরও ১০৮ স্ট্রাইক রেটের এ ইনিংস ৭ম ৯০+ এবং ২৩ তম হাইয়েস্ট ওয়ানডে অভিষেক ইনিংস হিসেবে রেকর্ডের খাতায় নাম লিখিয়েছে।

০৮ ইনিংসে ৪৮ গড় ও ৯৮ স্ট্রাইক রেটে হৃদয়ের  মোট ওয়ানডে রান ৩৩৮। পাঁচে ব্যাটিং এ  নেমে প্রথম ৬ ইনিংসে কোনো ব্যাটসম্যানের ৩০০ রান তৌহিদ হৃদয়ের যা ওয়ানডে ইতিহাসে প্রথম।

ব্যাট সুইং, কব্জির ফ্লেক্সিবিলিটি, মাসল পাওয়ার, শট সিলেকশন, গ্যাপ ফাইন্ডিং, স্ট্রাইক রোটেশন সব মিলিয়ে একজন পারফ্যাক্ট মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান।

লাস্ট ম্যাচের কথায় ধরা যাক, ৩২ বলের ৪৭ রানের ইনিংসে মাত্র ৫ টা ডট, ৩ চার আর দুই ছয়ের ইনিংসের বাকি ২৩ রান এসেছে সিংগেলস ডাবলসে।

এরকম অনেক সম্ভাবনাময় ব্যাটসম্যান বাংলাদেশের ক্রিকেট ইতিহাসে এসেছে ফুলের মতন কিন্তু ঝড়েও পড়েছে বড্ড অসময়ে।

আশাকরি পরিশ্রম, নিয়মানুবর্তিতা, টেকনিক, গেইম সিচুয়েশন ম্যাচুরিটি ও প্যাশন ধরে রেখে নিজেকে নিয়ে যাবেন অনেক উচুঁতে।  হয়ে উঠবেন বাংলাদেশের মিডল অর্ডারের হার্ট হিসেবে।

২০১১ সালের বিশ্বকাপের আগে ইউসিবি ব্যাংক একটা টিভিসি বের করেছিল, “বাংলাদেশের জান, বাংলাদেশের প্রাণ সাকিব আল হাসান, সাকিব আল হাসান”।

২০২৭ বিশ্বকাপের আগে যেন আরেকটা টিভিসি যেন বের হয়, মিডল অর্ডারের হার্ট, বাংলাদেশের হৃদয়, তৌহিদ হৃদয়, তৌহিদ হৃদয়।